বিজেপি এখন প্রাক্তন তৃণমূলীদের লড়াইয়ের মঞ্চ! শুভেন্দুর উত্থানে মুকুল-ঘনিষ্ঠরা ব্যাকফুটে

[ad_1]

মুকুলের হাত ধরেই প্রভূত সাফল্য পেয়েছিল বিজেপি

২০১৭ সালে মুকুল রায় তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসার পর জোয়ার এসেছিল গেরুয়া শিবিরে। মুকুল রায়কে সামনে রেখে ২০১৮-র পঞ্চায়েত ও ২০১৯-এর লোকসভা ভোটে প্রভূত সাফল্য পেয়েছিল বিজেপি। আর মুকুল রায়কে দিয়ে তৃণমূলকে ভাঙার কাজও মসৃণ গতিতে এগোচ্ছিল। আর তা করেই সাফল্য এসছিল দুই নির্বাচনে।

মুকুলের পর বিজেপির সফট টার্গেট ছিলেন শুভেন্দু

মুকুলের পর বিজেপির সফট টার্গেট ছিলেন শুভেন্দু

মুকুল রায়ের পর বিজেপির সফট টার্গেট ছিল শুভেন্দু অধিকারী। কিন্তু বহু চেষ্টাতেও শুভেন্দুকে তখন বিজেপিতে আনতে পারেননি মুকুল রায় বা অমিত শাহরা। কিন্তু বহু সাধনার ফলে ২০২১-এর নির্বাচনের প্রাক্কালে শুভেন্দু তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। অনেকেই ভেবেছিল, তাহলে পরিবর্তন আসন্ন। লাইন পড়ে গিয়েছিল দলবদলের।

মুকুল বিজেপিতে আসার পর ধীরে ধীরে অনুগামীরা ভিড়

মুকুল বিজেপিতে আসার পর ধীরে ধীরে অনুগামীরা ভিড়

এদিকে মুকুল রায় বিজেপিতে আসার পর ধীরে ধীরে তাঁর অনুগামীরা ভিড় জমিয়েছিলেন বিজেপিতে। সৌমিত্র খাঁ, অনুপম হাজরা থেকে শুরু করে সব্যসাচী দত্ত, দুলাল বর-রা যোগ দিয়েছিলেন গেরুয়া শিবির। তাঁদেরকে গুরুত্বের পদেও বসিয়েছিলেন মুকুল রায়। কিন্তু তাঁরা পদাসীন হলেও গুরুত্ব পাচ্ছেন না বর্তমানে।

মুকুলকে ব্যাকফুটে চলে যেতে হয়েছে শুভেন্দুর আগমনে

মুকুলকে ব্যাকফুটে চলে যেতে হয়েছে শুভেন্দুর আগমনে

শুভেন্দু অধিকারী বিজেপিতে আসার পর বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব মুকুল রায়ের উপর নির্ভর করাটা অনেকটাই কমিয়ে দিয়েছে। বরং শুভেন্দু অধিকারী ২০২১-এর নির্বাচনের আগে অনেক বেশি গুরুত্ব পেতে শুরু করেছেন। মুকুল রায়কে ব্যাকফুটে চলে যেতে হয়েছে। স্বভাবতই তাঁর অনুগামীরাও অনেকটা পিছনের সারিতে চলে গিয়েছেন।

মুকুল রায়ের জায়গা ছাড়ার বার্তা বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ

মুকুল রায়ের জায়গা ছাড়ার বার্তা বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ

সেইসময় মুকুল রায়ের জায়গা ছাড়ার বার্তাও বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ হয়ে উঠেছিল। মুকুল রায় বলেছিলেন, জায়গা ছাড়তে জানতে হয়। সঠিক সময়ে সরে যেতে হয়। আর সেটা তিনি ভালো মতোই জানেন। সেইমতো মুকুল রায় নিজেকে গুটিয়ে নিয়েছিলেন একুশের নির্বাচনের সময়। তাঁর নিজের কেন্দ্র ছাড়া সে অর্থে কোনও প্রচারে তাঁকে দেখা যায়নি।

শুভেন্দু অধিকারী গুরুত্বের আসনে বসেছেন বিজেপিতে

শুভেন্দু অধিকারী গুরুত্বের আসনে বসেছেন বিজেপিতে

বরং শুভেন্দু অধিকারী এবং তাঁর যোগদানের পর সেই ঢেউয়ে যাঁরা বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন, তাঁদের মধ্যে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় বেশি গুরুত্ব পাচ্ছিলেন। কিন্তু বেশিরভাগ তৃণমূল-ছুট নেতারই শোচনীয় পরাজয় ঘটেছে। শুভেন্দুও কোনরকমে জয় হাসিল করেছেন বহু বিতর্ক শেষে। তারপর শুভেন্দু অধিকারী গুরুত্বের আসনে বসেছেন।

মুকুল-অনুগামীরা এখন ভালো নেই বিজেপিতে!

মুকুল-অনুগামীরা এখন ভালো নেই বিজেপিতে!

শুভেন্দু অধিকারী বিধানসভার বিরোধী দলনেতা মনোনীত হয়েছেন। তাৎপর্যপূর্ণ যে শুভেন্দু অধিকারীর নাম প্রস্তাব করছেন মুকুল রায়। ভোটের পর এই মুকুল রায়ের ঘরওয়াপসি নিয়েও কম জল্পনা হয়নি। মুকুল রায় শুভেন্দুর নাম প্রস্তাব করে বিতর্কে ধামাচাপা দিলেও মুকুল-অনুগামীরা এখন ভালো নেই বিজেপিতে।

বিজেপিতে বিসর্জনের বাদ্যি একুশের বিধানসভার পর

বিজেপিতে বিসর্জনের বাদ্যি একুশের বিধানসভার পর

সম্প্রতি বিজেপিতে বিসর্জনের বাদ্যি বাজতে শুরু করেছে। ভোটের আগে ঘটা করে দলে যোগ দিয়েছিলেন যাঁরা, তাঁরা এখন তৃণমূলে ফিরতে মুখিয়ে আছেন। সোনালী গুহ তো খোলা চিঠি লিখেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্দেশ্যে। এরই মধ্যে অনেকে বিজেপি ছেড়েছেন। অনেকে ছাড়ার জন্য মুখিয়ে আছেন, যোগাযোগও শুরু করেছেন। এরই মধ্যে অনেক মুকুল ঘনিষ্ঠ নিজেকে আড়াল করে দিয়েছেন বিজেপি থেকে।

[ad_2]

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *