মুকুলের পর রাজীবের তৃণমূলে ফেরা নিয়ে জল্পনা, একটা মন্তব্যেই পারদ চড়ল হু হু করে

[ad_1]

রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে জল্পনা

একুশের ভোটে বিপুল জয়ের পর তৃণমূল কংগ্রেস সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দবলবদলু নেতাদের স্বাগত জানিয়েছিলেন তৃণমূলে। মমতা বলেছিলেন, আসুক না, কে বারণ করছে। এলে স্বাগত জানানো হবে। এরপরই মুকুল রায়কে নিয়ে প্রথমে, তারপরে রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়।

রাজীবের একটা মন্তব্যে তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের জল্পনা

রাজীবের একটা মন্তব্যে তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের জল্পনা

মুকুল রায়ের মৌনতা তৃণমূলে ফেরার জল্পনা দৃঢ় করেছিল, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটা মন্তব্য তাঁর তৃণমূলে প্রত্যাবর্তনের জল্পনা উসকে দিয়েছে। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এক জনপ্রিয় সংবাদমাধ্যমে সাক্ষাকারে বলেন, যতদিন বেঁচে থাকব, ততদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে শ্রদ্ধা করব।

মমতার প্রতি রাজীবের শ্রদ্ধা সুস্পষ্ট ইঙ্গিতবাহী

মমতার প্রতি রাজীবের শ্রদ্ধা সুস্পষ্ট ইঙ্গিতবাহী

রাজীবের এই মন্তব্যের পরে স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছিল, তাহলে কি আপনি এবার তৃণমূলে ফিরছেন? এই প্রশ্নের উত্তর এড়িয়ে গিয়েছেন রাজীব। তিনি বলেন, এ নিয়ে কোনও মন্তব্য করব না। জানি না কে জল্পনা ছড়িয়েছে। তবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রসঙ্গে যে শ্রদ্ধা রাজীবের কথায় উঠে এসেছে, তা সুস্পষ্ট ইঙ্গিতবাহী।

রাজীবের ঘরওয়াপসি নিয়ে জল্পনার নেপথ্যে

রাজীবের ঘরওয়াপসি নিয়ে জল্পনার নেপথ্যে

তৃণমূলে থাকাকালীন গত দুই নির্বাচনে রেকর্ড ভোটে জিতেছিলেন রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু ২০২১ তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যাওয়ার পর সেই ডোমজুড়েই তিনি মুখ থুবড়ে পড়েন। হার মানতে হয় ‘বন্ধু’ কল্যাণ ঘোষের কাছে। এই হারের পরই রাজীবের ঘরওয়াপসি নিয়ে জল্পনা তৈরি হয়। শেষে তাঁর এক মন্তব্য সেই জল্পনার পারদকে চড়িয়ে দেয় অনেকটাই।

মমতা বন্দ্যপাধ্যায়ের ছবি নিয়ে কাঁদতে কাঁদতে ইস্তফা

মমতা বন্দ্যপাধ্যায়ের ছবি নিয়ে কাঁদতে কাঁদতে ইস্তফা

তৃণমূল থেকে ইস্তফা দেওয়ার সময় রাজীবকে সংবাদমাধ্যমের সামনে কাঁদতে দেখা গিয়েছিল। এমনকী মমতা বন্দ্যপাধ্যায়ের ছবি নিয়ে তিনি ইস্তফা দিয়েছিলেন তৃণমূল থেকে। এবং মমতা বন্যো হপাধ্যায়কে মাতৃসম বলে আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন তিনি। তারপর মমতাকে টার্গেট করেই বিজেপির হয়ে নির্বাচনী যুদ্ধে নেমেছিলেন রাজীব। কিন্তু মমতার ক্ষুরধার মস্তিষ্কের কাছে হার মানত হয় তাঁদের।

[ad_2]

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *