হাতের আঘাত ভাবাচ্ছে ডাক্তারদের! দ্রুত কলকাতায় উড়িয়ে আনা হচ্ছে উদয়ন গুহকে

[ad_1]

North Bengal

oi-Kousik Sinha

ভোট পরবর্তী সন্ত্রাসে উত্তপ্ত বাংলা। ভোট মিটে যাওয়ার পরও বেশ কয়েকদিন কেটে গিয়েছে। কিন্তু বিভিন্ন জায়গা থেকে অশান্তির খবর সামনে আসছে। তেমনই বৃহস্পতিবার সকালে রাস্তায় বেরিয়ে আক্রান্ত হয় উদয়ন গুহকে। বেধড়ক মারধর করা হয় বলে অভিযোগ।

প্রাক্তন বিধায়কের হাতে গুরুতর আঘাত লাগে। সঙ্গে সঙ্গে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয় তাঁকে। কিন্তু অবস্থা বেশ গুরুতর। উদয়ন গুহের হাতের আঘাত ভাবাচ্ছে ডাক্তারদের।

আর সে কারনে দ্রুত কলকাতায় আনা হচ্ছে উদয়ন গুহকে। শুক্রবার এমনটাই জানিয়েছেন উদয়ন গুহর ছেলে সায়ন্তন গুহ।

সায়ান্তন গুহ সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, শনিবার সকালে তৃণমূল নেতাকে সড়ক পথে নিয়ে আসা হবে বাগডোগরাতে। সেখান থেকে বিমানে আনা হবে কলকাতা। বর্তমানে প্রাক্তন বিধায়কের চিকিত্সা হচ্ছিল দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে।

কিন্তু তাঁর হাতের হাড় যেভাবে ভেঙেছে তাতে সেই চিকিত্সা আর দিনহাটাতে হওয়া সম্ভব নয়। এমনটাই বলছেন ডাক্তারর। তাই তাঁকে কলকাতায় নিয়ে যেতে হচ্ছে। সূত্রের খবর, সম্ভবত তাঁকে ভর্তি করা হবে কলকাতার অ্যাপলো হাসপাতালে।

এদিকে, উদয়ন গুহর উপরে হামলার পর থেকেই উত্তপ্ত দিনহাটা। ঘটনার পরে বিজেপি কর্মী-স্থানীয়দের উপর হামলার ঘটনা ঘটেছে। ভেঙে গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সেখানকার বিজেপি নেতাদের বাড়ি। শুধু তাই নয়, ঘটনার প্রতিবাদে ৩০ ঘন্টার ধর্মঘট চলছে দিনহাটাতে।

এরপরেও দফায় দফায় উত্তেজনা ছড়াচ্ছে দিনহাটাতে। অন্যদিকে, হামলার জড়িত থাকার অভিযোগে এখনও পর্যন্ত ৩ জনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। পাশাপাশি হামলার পর পাল্টা যে ভাঙচুর হয় তার জেরে ৮ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিন সাংবাদিকদের কাছে উদয়ন গুহর ছেলে সায়ন্তন অভিযোগ করেন, দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত বিজেপির হয়ে কাজ করছেন। হামলার পর বিজেপি কর্মী জড়িত তাদের পালিয়ে যেতে সাহায্য করেছেন তিনি।। এমনটাই অভিযোগ।

যদিও পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে যে ঘটনার তদন্ত হচ্ছে। খুব শিঘ্রই উদয়ন গুহের উপর হামলার ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করা হবে।

পাশাপাশি বৃহস্পতিবার নবান্নে উদয়ন গুহের উপর হামলার ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

তিনি বলেন, “উদয়ন গুহের হাত ভেঙে দিয়েছে। কোচবিহারে বেশি অশান্তি করছে বিজেপি। ওখানে গুন্ডামিতে বেশি উস্কানি দিচ্ছে বিজেপি। সেখানে খুব অত্যাচার করছে কারণ ওখানে বেশি সিট জিতেছে বলে। আমি সবাইকে বলছি, কেউ অশান্তি করবেন না। নাহলে কিন্তু পুলিশ কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। কাউকে কোনওরকম অশান্তি করতে দেওয়া হবে না।”

[ad_2]

Source link

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *